মৃত্যুর পরে বাইচান্স ইসলাম ছাড়া অন্য যেকোনো ধর্ম সত্যি হয়ে গেলে তখন কি হবে?

 

কবরস্থান। graveyard

প্রশ্নঃ মৃত্যুর পরে বাইচান্স ইসলাম ছাড়া অন্য যেকোনো ধর্ম সত্যি হয়ে গেলে তখন কি হবে?

লেখকঃ এম ডি আলী।


📷 উত্তরঃ মৃত্যুর পরে আখিরাতে নাস্তিকরা যদি দেখে ইসলাম সত্য তাহলে তো ধরা খাবে আর যদি দেখে কিছুই নেই তাহলে সবাই রক্ষা পেলাম। যদিও সব দিক থেকেই মুসলিমরা এগিয়ে অথবা নিরাপদ। এরপরে নাস্তিকরা একটা প্রশ্ন করে যদি অন্য ধর্ম যেমন হিন্দু খ্রিষ্টান বৌদ্ধ ইত্যাদি ধর্ম সত্য হয় তখন মুসলিমদের কি হবে? মুসলিমরাও তো নাস্তিকদের মতো অনন্তকাল আগুনে পুড়বে।


📷 প্রশ্নটি যদি সঠিক ধরে নিয়েও সামনে আগাই তাহলেও মুসলমানরা আখিরাতে নিরাপদ থাকবে।


কারনঃ বাইচান্সঃ


যদি হিন্দু ধর্ম সত্য হয় তাহলেঃ


ঋকবেদে 1/24/2, 10/59/6, 10/16/3। এছাড়া যজুর্বেদে ও অর্থবর্ষে বেদেপুনর্জন্মের কথা আছে।


তাই সমস্যা নেই কারন হিন্দু ধর্মের আকিদা অনুযায়ী মানুষের পুর্নজন্ম হবে। তাহলে মুসলিমরা যদি মারা যায় তাহলে তারা আবার দুনিয়াতে আসবে মুসলিমদের পুর্নজন্ম হবে । এখানেও মুসলিমরা নিরাপদ কারন আগুনে তো আর পুড়ছে না।


যদি খ্রিষ্টান ধর্ম সত্য হয় তাহলেঃ

যীশু হচ্ছেন পরিত্রাণ বা উদ্ধার পাবার একমাত্র পথ, কারণ একমাত্র তিনিই আমাদের পাপের জন্য বেতন (জরিমানা) দিয়েছেন (রোমীয় ৬:২৩)।


যীশুই একমাত্র পথ, যিনি চুড়ান্ত ঋণ শোধ করে দিয়েছেন। যীশু নিজেই ঈশ্বর ছিলেন বলে তিনি আমাদের ঋণ শোধ করে দিতে পেরেছেন। যীশু মানুষ হয়েছিলেন যেন তিনি আমাদের পাপের জন্য মৃত্যুবরণ করতে পারেন। তাঁকে বিশ্বাস করেই পরিত্রাণ বা উদ্ধার পাওয়া যায়! “পাপ থেকে উদ্ধার আর কারও কাছে পাওয়া যায় না, কারণ সারা জগতে আর এমন কেউ নেই যার নামে আমরা পাপ থেকে উদ্ধার পেতে পারি” (প্রেরিত ৪:১২)।


খ্রিষ্টান ধর্মের ফেমাস আকিদা হচ্ছে যীশু মানুষের সব পাপের বোঝা নিজের কাধে নিয়েছেন। সেই হিসেবে মুসলিমরা যদি এই খ্রিষ্টান ধর্ম গ্রহন না করে আর এটা যদি পাপ হয় তাহলে এই পাপের বোঝা যীশু নিবে। তাহলে এখানেও মুসলিমরা নিরাপদ। মুসলিমদের পাপের বোঝা যীশুর নিয়েছে।


যদি বৌদ্ধ ধর্ম সত্য হয় তাহলেঃ

এই ধর্মে স্রস্টার অস্তিত্বকেই মানা হয় না সেখানে আখিরাতে বিচার হবে এই সিস্টেমই এই ধর্মেই নাই। এখানেও মুসলিমরা নিরাপদ। এই ধর্মেও পুনর্জন্ম সিস্টেম আছে অনেকে বলে।এ ছাড়া জৈনধর্ম, শিখধর্মেও আছে।


যদি নাস্তিক্যধর্ম সত্য হয় তাহলেঃ

এই পয়েন্টটি লেখার সময় আমার অনেক হাসি পেয়েছে। যে ধর্ম কোনটা সঠিক আর কোনটা ভুল সেটাই বিশুদ্ধ ভাবে পরিমাপ করতে পারে না সেই নাস্তিক্যধর্ম সত্য কিভাবে হয়? আর যারা এই ধর্মে বিশ্বাস করে তারা কতোটা সঠিক পথে আছে সেটা নিয়েও মারাত্মক সন্দেহ রয়েছে, যেকোনো চিন্তাশীল মানুষদের। মৃত্যুর পরের জীবনকে অস্বীকার করে যেই অন্ধবিশ্বাস করা হয় - সেটা নিয়ে আবার রিস্ক কিসের?


যদি ইসলাম সত্য হয় তাহলেঃ


* সুরা আল ইমরান ৩ঃ১৯ = আল্লাহতায়ালা বলেন, ‘নিশ্চয় আল্লাহর কাছে গ্রহণযোগ্য ধর্ম একমাত্র ইসলাম।

* সুরা বাকারা ২ঃ২ = এই সেই কিতাব, যাতে কোন সন্দেহ নেই, মুত্তাকীদের জন্য হিদায়াত।

* সুরা বাকারা ২ঃ১৪৭/সুরা আলে ইমরান ৩ঃ৬০ = সত্য তোমার রবের পক্ষ থেকে। সুতরাং তুমি কখনো সন্দেহ পোষণকারীদের অন্তর্ভুক্ত হয়ো না।

* সুরা নিসা ৪ঃ৮৭ = আল্লাহ, তিনি ছাড়া কোন (সত্য) ইলাহ নেই। অবশ্যই তিনি তোমাদেরকে একত্র করবেন কিয়ামতের দিনে। এতে কোন সন্দেহ নেই। আর কথায় আল্লাহর চেয়ে অধিক সত্যবাদী কে?

* সুরা ইউনুস ১০ঃ৩৭ = এ কুরআন তো এমন নয় যে, আল্লাহ ছাড়া কেউ তা রচনা করতে পারবে; বরং এটি যা তার সামনে রয়েছে, তার সত্যায়ন এবং কিতাবের বিস্তারিত ব্যাখ্যা, যাতে কোন সন্দেহ নেই, যা সৃষ্টিকুলের রবের পক্ষ থেকে।

আর কিয়ামত আসবেই, এতে কোন সন্দেহ নেই এবং কবরে যারা আছে নিশ্চয়ই আল্লাহ তাদের পুনরুত্থিত করবেন। (সুরা হজ ২২ঃ৭)

* সুরা সিজদাহ ৩২ঃ২ = এ কিতাব সৃষ্টিকুলের রবের পক্ষ থেকে অবতীর্ণ, এতে কোন সন্দেহ নেই।

* সুরা বাকারা ২ঃ১৩২ / সুরা আল ইমরান ৩ঃ১০২ = তোমরা মুসলিম হওয়া ছাড়া মারা যেয়ো না।


উপরের সব আয়াত প্রমান করছে মৃত্যুর পর একমাত্র ইসলামই সত্য। খাটি মুসলিম না হয়ে মারা গেলে জাহান্নাম। মুসলিম হয়ে যাওয়াটাই নিরাপদ সমাধান। সন্দেহ নেই। কেউ যদি ইসলাম গ্রহণ না করে তাহলে অনেক মারাত্মক একটা রিস্ক আছে জাহান্নামের।অতএব মৃত্যুর পরে যদি ইসলাম সত্য হয়ে যায় তাহলে কিন্তু মুসলিমরা সফল হলেও বাকি সবাই বিপদে পড়বেন সুতরাং নিরাপদে থাকার জন্য হলেও ইসলাম গ্রহণ করাটাই একমাত্র সমাধান। যুক্তি তাই বলছে।বিশ্বে মোট ধর্মের সংখ্যা ৪,৩০০। তবে সংখ্যাটা এর বেশিও হতে পারে। সবাই সবার ধর্মকে সত্য বলে দাবি করছে। তাহলে এতো ধর্মের মাঝে একমাত্র ইসলামই সত্য এটার সম্ভাবনা কতোটুকু?


উত্তরঃ প্রথমত দুনিয়ার সব ধর্ম বিষয় গবেষণা করে সত্য জানা পসিবল না এটা ডাহা মিথ্যা কথা। সব ধর্মই নিজেকে সত্য বলে দাবি করছে তাই আসলে কেউই সত্যি না বরং সবাই ভুল - এই কথাটিও ভুল। চেষ্টা করলে সম্ভব এবং এটাও বের করা সম্ভব কোনটা সত্য ধর্ম।


একটা সহজ সুত্র শিখিয়ে দেই। কেউ যদি ধর্ম বিষয় গবেষণা করতে যান তাহলে দেখবেন সেই ধর্ম আপনাকে চ্যালেঞ্জ করছে কিনা, সেই ধর্ম সব যুগের সাথে খাপ খেতে পারে কিনা, মানব জীবনের সব সমস্যার সমাধান দেয় কিনা এসব জিনিস মাথায় রেখে গবেষণা করলে আশা করি সহজ হবে। অন্য মতাদর্শ থেকে ইসলাম যে আলাদা এবং সত্য সেটা এমনেই ফুটে উঠবে আপনার কাছে কিন্তু এর জন্য সততা থাকতে হবে। মূর্খ নাস্তিকদের মতো কাটছাঁট জালিয়াতি মার্কা জ্ঞান দিয়ে জানলে তো আর হবে না। আমার কথা হলো সব ধর্ম নিয়েই গবেষণা করা উচিত। আমি ব্যক্তিগতভাবে এটা পছন্দ করি, করিও। দেখবেন নিজেই সত্য পেয়ে যাবেন। এটা তেমন কঠিন কিছু না।


একটা উদাহরণ দেইঃ

সুরা সাফফাত ৩৭:১৫৭ = তোমরা সত্যবাদী হলে তোমাদের কিতাব নিয়ে আস ।

এখন আপনি যদি মনে করেন কুরআন থেকে আপনাদের বই বেস্ট সেটা আপনি প্রমান করুন । অন্য ধর্মের কথা বাদই দিলাম নাস্তিকরাই তো নাস্তিক্যধর্মের কোন সার্বজনীন সমাধান দিতে পারেনা । এদের নৈতিকতার কোনো কেতাব নেই। যার যেভাবে ইচ্ছা সেভাবে চলে ঠিক গাধা,ছাগল, কুকুর,শুকর,বান্দর এদের মতো। নাস্তিকরা এই উদাহরণে খুব খুশি কারন বিবর্তনবাদ তো পশুবাদই তাই না!


এখন একটা সরল প্রশ্ন করি দুনিয়ায় হাজার হাজার কোটি কোটি মতবাদের মাঝে নাস্তিকদের "নাস্তিক্যধর্ম"ই একমাত্র সঠিক পথ সেটার সত্যতা কতটুকু, সম্ভাবনা কতটুকু? এই প্রশ্নে মুসলিমদের সাথে যুক্তিতে কুলাতে না পেরে অন্ধবিশ্বাসী নাস্তিকরা বলে থাকে যেহেতু সকল ধর্মকে "নাস্তিক্যবাদ" অস্বীকার করে তাই এটাই সত্য । নাস্তিকদের এই একই যুক্তিতে আমি যদি বলি ইসলাম সকল ধর্মকে বাতিল ঘোষণা করে সুতরাং ইসলামই একমাত্র সত্য ধর্ম, তাহলে কি নাস্তিকরা এটা মেনে নিবে? নাস্তিকদের নিজেদের যুক্তিতে যদি অন্য সব ধর্ম ভুল হয় তাহলে একই যুক্তিতে নাস্তিকদের নাস্তিক্যবাদও ভুল । আমি ওদের যুক্তিটিই হুবহু পেশ করলাম কিন্তু!

أحدث أقدم